প্রভু তোমারি করি আহবান

নষ্ট পৃথিবী, নষ্ট্ মানব, নষ্ট সকল ধারা

ছলনায়, কামনায় বাড়িছে শুধু ।

ভন্ডামি নষ্টামি জলধারা সম হয়ে

র্মত্যবাসী পেয়েছে যেন অমৃত মধু ।।

শিক্ষা ধরেছ, করেছ পাঠ, করেছ কি মনন

পরাণ বীণার তারে।

প্রেম রতন, আলোকিত ভূবণ

হয়েছে ভ্রম বুঝি বারেবার।।

আকাশ বাতাস নক্ষত্র তারা

সকলই যে কম্পমান।

কথার ছলে, দুষ্ট জালে

প্রাণহীন দেহ,নষ্ট গান।।

কলঙ্ক চাপিয়ে, অপবাদের তীলক পরে

যারাই হয়েছে অপমান রাজ্যের রাজা।

আলোর প্রতিফলনে, তব সত্তা¡ আজ

সকল প্রানন আজ কাটিছে সাজা।।

ক্লীবত্ব তোমার দূর হোক, শান্ত হোক আত্মা

দুষ্টের কঠোর উৎপাটনে ।

ভাল তুমি হতে চাও, মানবের মাঝে

পারিবেনা তুমি বিবেকের তাড়নে।।

সাময়িক লজ্জা ঘৃনা, অপমান যার তরে

তারে তুমি সাধিছ বারেবার।

ইষ্ট প্রতিষ্টার, সত্য প্রতিষ্টার মহান ব্রতে

রক্তের বন্যা আসুরিক সমাজে ধ্বনিছে ঝংকার।।

তব ক্ষীনকাল, এই ছদ্মবেশ ধরি

হইয়াছ মহান এ ভবের বাজারে।

সেই দিন দেরি নাহি আর

বুঝিবে সত্য কি বলে আহারে।।

ছোট ছোট ফাঁক, ছোট ছোট বাঁক

হবে ক্রমে ক্রমে বহমান।

ধরিত্রী ভরিবে নষ্টের জঞ্জালে

প্রভু তোমারি করি আহবান।।

র্ঈষার অনলে পোড়াইতে চাহি কিছুক্ষণ

তোমার এ র্দুদিনে তব

শক্তি, বিশ্বাস, উপলব্দি যদি থাকে

আমি দুহাত ভরিয়া লব।।

মোর প্রাণের মাঝে শঙ্খ ধ্বনি

এই বদ্ধ ঘরের

শৃঙ্খলিত দ্বার খুলে দাও

মনোবন্দিদের মনকক্ষে

সুপ্রভ অনল আসতে দাও।

আমি চাই,

সুন্দরের পুজারী হয়ে বাঁচতে

পূর্ণ স্বাধীনতায় মনের আহলাদে হাঁসতে।

আমি চাই,

স্রোতস্বিনীর মত ভেসে চলে যেতে

অন্য অজানা কোন জগতে।

আমি চাই,

তমিস্র রাতের আয়াস ক্লেসে

তুরঙ্গ বেগে ছুটে চলে যেতে

যেন কভু ভূ-ধাত্রীর কষ্ট

মোরে রাখতে পারে না বন্ধনে।

আমি চাই,

বিহঙ্গম সাঁজে উড়িতে নভঃগগনে

তবুও যেন মোরে দেখিতে না হয়

বসুধার মানুষের আত্ম দন্ধ

যেন মোরে ভাসতে না হয় ক্রন্দনে।

আমি চাই,

মুক্ত আকাশ, মুক্ত বাতাস

সোনার খাঁচা হতে মুক্ত পাখিদের গান

মোর নিকেতন মাঝে যেন

স্থান না পায় কোন দাসত্ব।

আমি চাই,

অবারিত ফুলের সুরভী বাগান

ধানের শীষের নুয়ে পড়া শির

তরুর নবসৃষ্টি অপূর্ব তীলক

সবকিছই যেন পায় গুরুত্ব।

আমি চাই,

গণ মানুষের অকৃত্রিম বন্ধনে মিশতে

মনের অহমিকা ছেড়ে নব প্রভার দেশে

সুপ্তরঙের আলোক ছটায়

জীবনের জলছবি আঁকতে

আমি চাই,

নিশাকর সাঁজে সেবিতে মানব-মানবী

মোর প্রাণের মাঝে শংখ ধ্বনি।